গণিতে আমরা যখন কিছু প্রমাণ করি, একটা গাণিতিক বাক্যকে আমরা সত্য হিসেবে প্রতিষ্ঠা করি। সেটা কিন্তু খুব সহজ কিছু নয়। অলিম্পিয়াড পর্যায়ে কাজ করার অভিজ্ঞতা থেকে জানি, এই ‘প্রমাণ করো’ ধরনের সমস্যাগুলোতেই আমাদের দেশের ছেলেমেয়েরা সব থেকে বেশি দুর্বল। এই বইটা সেই দুর্বলতা কাটিয়ে উঠতে দারুণ সহায়ক হবে বলে মনে করি।
প্রমাণ করতে গিয়ে আমাদের হাঁটতে হয় নির্ভুল যুক্তির পথ ধরে। ব্যবহার করতে হয় স্বতঃসিদ্ধ, উপপাদ্য, আর নানান রকম কৌশল। অমন অনেকগুলো কৌশল, সে কৌশলগুলো কেন কাজ করে, আর কী কী ভুল হতে পারে সেগুলো প্রয়োগের সময়- সেগুলোর এক অনবদ্য সংকলন এ বইটি। তিনজন তরুণ লেখক যারা নিজেরা জাতীয় ও আন্তর্জাতিক গণিত অলিম্পিয়াডের সাথে প্রতিযোগী ও প্রশ্ন প্রণয়নকারী হিসেবে বহুদিন ধরে যুক্ত আছেন, তারা এ অসাধারণ কাজটি করে ফেলেছেন।
বিভিন্ন রকম গাণিতিক বাক্যের গঠনের কথা আছে, আছে সেগুলোকে উল্টেপাল্টে বললে কী অর্থ প্রকাশ করে তার কথা। প্রমাণের কৌশল ও বিস্তারিত ভাবনা বোঝাতে গিয়ে সেট, গ্রাফ থিওরি, গণনাতত্ত্ব, সম্ভাব্যতা খুব সাজানো-গোছানোভাবে এসেছে। আর প্রতিটা অধ্যায়েই সারা পৃথিবীর গণিত অলিম্পিয়াডগুলো থেকে বেছে বেছে কিছু সুন্দর সমস্যা উদাহরণ হিসেবে সমাধান করে দেওয়া হয়েছে। আর আছে অনুশীলনী।
তবে এ বইটির সব থেকে চমৎকার বিষয় হলো ‘অপপ্রমাণ’। লেখকেরা অপপ্রমাণ বলতে বুঝিয়েছেন কোনো কিছু ভুলভাবে প্রমাণ করাকে। সেটা দেখতে মনে হয় প্রমাণের মতো, অথচ সেখানে যুক্তির ফাঁক রয়ে গেছে। কতভাবে আমরা ভুল করে ফেলি, সেই ভুলের ফলাফল কেমন হয়, সেই ভুলগুলো কেনই-বা ভুল, ‘অপপ্রমাণ’ অংশে লেখকেরা সেই কাজটা দুর্দান্তভাবে উপস্থাপন করেছেন।

— চমক হাসান

Reviews

There are no reviews yet.

Be the first to review “প্রমাণ করো যে”

Your email address will not be published. Required fields are marked *