Showing 21–40 of 326 results

  • অব্যক্ত

    জগদীশচন্দ্র বসু ১৮৫৮ সালের ৩০ নভেম্বর বর্তমান বাংলাদেশের মুন্সিগঞ্জে জন্মগ্রহণ করেন। বিক্রমপুরের রাঢ়িখাল গ্রামে তার পরিবারের প্রকৃত বাসস্থান ছিল।
    তিনি ছিলেন একজন বাঙালি পদার্থবিদ, জীববিজ্ঞানী এবং কল্পবিজ্ঞান রচয়িতা। ভারতীয় উপমহাদেশে ব্যবহারিক ও গবেষণাধর্মী বিজ্ঞানের সূচনা তার হাত ধরে হয় বলে মনে করা হয়। ইনস্টিটিউট অব ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিকস ইঞ্জিনিয়ার্স তাকে রেডিওবিজ্ঞানের একজন জনক হিসেবে অভিহিত করে।
    মূলত ইংরেজিতে গ্রন্থ রচনা করলেও বাংলায় তার উল্লেখযোগ্য একটি গ্রন্থ হচ্ছে ‘অব্যক্ত’।
    ১৯৩৭ সালের ২৩ নভেম্বর ভারতের ঝাড়খন্ডের গিরিডিতে এই বিশ্ববরেণ্য বিজ্ঞানীর জীবনাবসান ঘটে। মৃত্যুর কিছুদিন আগে তার আজীবন সঞ্চিত ১৭ লাখ টাকার মধ্যে ১৩ লাখ টাকা ‘বসু বিজ্ঞান মন্দির’কে দান করেন।

    ৳ 255৳ 300
  • অর্থবিজ্ঞানে হাতেখড়ি

    আলী হায়দায় খান
    জন্ম ও বেড়ে ওঠা ঢাকা শহরে। নটরডেম কলেজ থেকে এইচএসসি পাশ করে তেমন কিছু না জেনেই ভর্তি হয়েছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফাইন্যান্স ডিপার্টমেন্টে, সেখান থেকেই লেখকের ফাইন্যান্সের সাথে জানাশোনা। পরবর্তীতে ঢাকা আইবিএ থেকে ব্যবসা-প্রশাসনে স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেন। পেশাগত জীবনে বিভিন্ন আর্থিক প্রতিষ্ঠানে কাজ করার পাশাপাশি দীর্ঘ এক যুগেরও বেশি সময় উইকিপিডিয়া নিয়ে কাজ করেছেন। বাংলাদেশের বাংলা উকিপিডিয়া সম্প্রদায়ের তিনি অন্যতম সংগঠন এবং উইকিপিডিয়া বাংলাদেশের সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও বর্তমান সভাপতি। এছাড়া উইকিপিডিয়া পরিচালনাকারী সংস্থা উইকিমিডিয়া ফাউন্ডেশনের ফান্ডস ডেসিমিনেশন কমিটিতেও ৩ বছর সহ-সভাপতিতে হিসেবে কাজ করেছেন।
    তিনি পাহাড় ও বন খুব পছন্দ করেন। এক সময় পার্বত্য চট্টগ্রামের পাহাড় ও দেশের বিভিন্ন প্রান্তের বনে-জঙ্গলে ঘুরে বেড়িয়েছেন। বর্তমান বসবাস কানাডার টরন্টোতে।
    ইমেইল: [email protected]

    ৳ 170৳ 200
  • অলক্ষ্য মায়া

    সাফিনাজ সুলতানা
    জন্ম ১৯৮২ সালে, গাইবান্ধায়। সেখানেই উচ্চমাধ্যমিক পর্যন্ত লেখাপড়া। এরপর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলায় এমএ।
    উৎসবপ্রিয়। কোনো উৎসব ঘিরে যখন মানুষ একত্র হয়, সবার প্রাণে প্রাণ মেলাতে ভালোবাসেন। মনে মনে সে আনন্দ উপভোগ করেন। সবুজ পছন্দের রং বলে প্রকৃতি তার এত প্রিয়। প্রকৃতির ঔদার্যে প্রতিনিয়ত মুগ্ধ হন তিনি।
    অলক্ষ্য মায়া লেখকের তৃতীয় উপন্যাস। প্রথম উপন্যাস দীঘল জলে নিমগ্নতা প্রকাশিত হয় ২০২০ সালে। দ্বিতীয় উপন্যাস সাদা খাম প্রকাশিত হয় ২০২১ সালে। প্রথম গল্পগ্রন্থ সুতপার হাই হিল প্রকাশিত হয় ২০১৮ সালের বইমেলায়।

    ৳ 238৳ 280
  • অশ্বারোহীর বিশ্বভ্রমণ

    ফরিদুর রহমানের লেখা গল্পগুলো তাঁর নানা অভিজ্ঞতায় সমৃদ্ধ। বিষয়ের বৈচিত্র্য ছাড়াও নির্মোহ বর্ণনাভঙ্গি, চমৎকার রসবোধ ও তীক্ষ্ণ পর্যবেক্ষণ এসব গল্পের অন্যতম বৈশিষ্ট্য। ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করে জাতীয় জীবনের সবচেয়ে গৌরবময় সময়টি তিনি দেখেছেন অত্যন্ত কাছ থেকে। মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কিত গল্পগুলোতে রয়েছে সেই সময়ের নিবিড় পর্যবেক্ষণের ছাপ। ছোটগল্প ছাড়াও ভ্রমণকাহিনি ও কবিতাসহ সাহিত্যের সকল শাখায় তাঁর বিচরণ রয়েছে।
    ভ্রমণকাহিনিতে সাবলীল ভাষায় লিখেছেন বিভিন্ন দেশের শহর, নগর, পুরাকীর্তি, আধুনিক স্থাপনা এবং জনজীবনের নানা প্রসঙ্গ নিয়ে। তাঁর লেখায় নদী, নিসর্গ, উদ্যান ও বনভূমি দৃশ্যমান হয়ে ওঠে, পরিচয় ঘটে ভিনদেশি জনপদের সাথে। রোজনামচাধর্মী বৃত্তান্তের বাইরে ভ্রমণগল্পে তিনি একটি নিজস্ব ধারার সূচনা করেছেন, যেখানে ভ্রমণসঙ্গী অথবা যাত্রাপথের মানুষগুলো এক একটি চরিত্র হয়ে উপস্থিত।
    ফরিদুর রহমানের জন্ম ১৯৫৪ সালে। তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজি সাহিত্যে অনার্সসহ এমএ। পরবর্তী সময়ে পুনের ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়া থেকে চলচ্চিত্র বিষয়ে গ্রহণ করেছেন উচ্চতর শিক্ষা। অনুষ্ঠান প্রযোজনাসহ বাংলাদেশ টেলিভিশনের অনুষ্ঠান বিভাগে দীর্ঘকাল গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেছেন। বর্তমানে পত্রপত্রিকায় লেখা এবং স্বাধীন প্রামাণ্যচিত্র নির্মাণের পাশাপাশি চলচ্চিত্র ও টেলিভিশনসংশ্লিষ্ট বিষয়ে পাঠদান করছেন বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে।
    গল্প, উপন্যাস, অনুবাদ ও কবিতা মিলিয়ে প্রকাশিত গ্রন্থের সংখ্যা পঁচিশ। প্রকাশিত ভ্রমণকাহিনি: বার্লিনে বসন্তের দিন, নানা রঙের আফ্রিকা, দূরদেশে: একা ও একসঙ্গে, যে যায় লঙ্কায় এবং সাত দিনে সাত দেশে।

    ৳ 306৳ 360
  • অ্যালগরিদম ডিজাইন

    জন্ম ও বেড়ে ওঠা সাতক্ষীরাতে। ছোটকাল থেকেই আড্ডাবাজি ও খেলাধুলাতে চ্যাম্পিয়ন। কোডিংয়ের ওপর ঝোঁকটা ছিল প্রবল। খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত বিভাগে ভর্তি হবার পর গণিতকে ভালোলাগা ও ভালোবাসার শুরু।
    দ্বিতীয় বর্ষে থাকতেই গবেষণাধর্মী কর্মকাণ্ডে হাতেখড়ি। সেখান থেকে গবেষণাটা নেশায় পরিণত হয়। ম্যাথমেটিক্যাল মডেলিং, ডাটা সায়েন্স ও মেশিন লার্নিং নিয়ে বর্তমানে কয়েকটি গবেষণাকর্মে রত।

    ৳ 318৳ 375
  • আখ্যানমঞ্জরী

    ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর পশ্চিমবঙ্গের মেদিনীপুর জেলার বীরসিংহ গ্রামে ২৬ সেপ্টেম্বর ১৮২০ সালে জন্মগ্রহণ করেন।
    উনিশ বছর বয়সে বিশেষ পরীক্ষায় সাফল্য অর্জন করে তিনি ‘বিদ্যাসাগর’ উপাধি লাভ করেন। বদান্যতার জন্য তিনি ‘দয়ার সাগর’ নামেও অভিহিত হন। ১৮৪১ সালে তিনি ফোর্ট উইলিয়াম কলেজের প্রধান পণ্ডিত নিযুক্ত হন এবং পরে সংস্কৃত কলেজের অধ্যক্ষ হন।
    তিনিই প্রথম বাংলা গদ্যের অভ্যন্তরীণ শৃঙ্খলা আবিষ্কার করেন এবং গদ্য ভাষায় যতিচিহ্ন যথাযথভাবে প্রয়োগ করেন। ফলে তার গদ্য হয়ে ওঠে শৈলীসম্পন্ন। এ জন্য তাকে বাংলা গদ্যের জনক বলা হয়।
    ১৮৫৫ সালের শিশুদের বাংলা বর্ণমালার প্রথম সার্থক গ্রন্থ বর্ণ পরিচয় তারই লেখা। এ গ্রন্থ আজও বাংলা ভাষা শিক্ষার ক্ষেত্রে পথনির্দেশক। বেতাল পঞ্চবিংশতি, শকুন্তলা, সীতার বনবাস, চরিতাবলী, ভ্রান্তিবিলাস প্রভৃতি গ্রন্থ তার প্রধান রচনা।
    ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর ১৮৯১ সালের ২৯ জুলাই মৃত্যুবরণ করেন।

    ৳ 255৳ 300
  • আচরণগত স্নায়ুবিজ্ঞান

    আশরাফ মাহমুদ
    গবেষক, কবি ও লেখক
    জন্ম: ১৮ এপ্রিল, ১৯৮৯ (৫ বৈশাখ), নোয়াখালী জেলায়।
    কৈশোর থেকে বেড়ে ওঠা কানাডার মন্ট্রিয়ালে। পিএইডি করছেন আচরণগত স্নায়ুবিজ্ঞান ও ক্লিনিক্যাল সাইকোলজিতে কানাডার কনকর্ডিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে এবং সেখানেই গবেষক হিসেবে কর্মরত। আন্তর্জাতিক বিভিন্ন বৈজ্ঞানিক জার্নালে একাধিক বৈজ্ঞানিক গবেষণাপত্র প্রকাশিত হয়েছে। লেখালেখিতে সব্যসাচী। কবিতা, গল্প, গান, মুক্তগদ্য, বিজ্ঞান নিয়ে লিখছেন নিয়মিত। মুক্তমনা ও সচলায়তনসহ নানা বাংলা ব্লগও আন্তর্জাতিক মাধ্যমে লেখেন। দেশে বিজ্ঞানের প্রসারের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক উপন্যাস লেখার আগ্রহ আছে। ভ্রমণ করতে ও ছবি তুলতে ভালোবাসেন।
    প্রকাশিত গ্রন্থ: রোদের অসুখ (কাব্যগ্রন্থ, শুদ্ধস্বর প্রকাশনী, ২০১১) মহিমান্বিত নকশা ( The Grand Design, অনুবাদকর্ম, অন্বেষা প্রকাশনী, ২০১১)।
    যোগাযোগ: [email protected]
    ফেসবুক: http://fb.com/ashraf.mahmud

    ৳ 425৳ 500
  • আত্মপক্ষ ও অন্যান্য গল্প

    মোরশেদ শফিউল হাসান
    জন্ম ১৯৫৩ সালের ২১ মার্চ (৭ চৈত্র ১৩৬০)। লেখাপড়া করেছেন চট্টগ্রামের পলোগ্রাউন্ড রেলওয়ে স্কুল, কলেজিয়েট স্কুল ও চট্টগ্রাম সরকারি কলেজে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলা ভাষা ও সাহিত্যে সম্মানসহ স্নাতকোত্তর। একই বিশ্ববিদ্যালয়ের পিএইচডি।
    দেশের বিভিন্ন সরকারি কলেজে ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপনা করেছেন। দীর্ঘ সময় শিক্ষা সংশ্লিষ্ট দাপ্তরিক কাজেও নিয়োজিত ছিলেন। ঢাকার সরকারি বিজ্ঞান কলেজের অধ্যক্ষ হিসেবে অবসর গ্রহণের পর বর্তমানে দেশের শীর্ষস্থানীয় প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান ‘প্রথমা’র সঙ্গে পরামর্শক হিসেবে যুক্ত আছেন। কর্মজীবনের শুরুতে বেশ কিছুকাল বিভিন্ন পত্রিকায় সাংবাদিকতা করেছেন। এখনও মাঝে মাঝে পত্রপত্রিকায় কলাম লেখেন।
    প্রকাশিত বইয়ের সংখ্যা ষাটের অধিক। এর মধ্যে রয়েছে প্রবন্ধ, গবেষণা, কবিতা, উপন্যাস, অনুবাদ, শিশু-কিশোর সাহিত্য, জীবনী, জনপ্রিয় বিজ্ঞান, সাময়িক প্রসঙ্গধর্মী বা সামাজিক-রাজনৈতিক বিশ্লেষণমূলক রচনা ইত্যাদি। সম্পাদনাও করেছেন বেশ কিছু বই।
    প্রবন্ধ ও গবেষণায় বাংলা একাডেমি ও আহমদ ছফা সাহিত্য পুরস্কার পেয়েছেন।

    ৳ 136৳ 160
  • আফগানিস্তানের কবিতা

    কায়েস সৈয়দ
    জন্ম: ১৭ মে, বরিশালের মেহেন্দীগঞ্জ
    বেড়ে ওঠার অঞ্চল: বন্দরনগরী নারায়ণগঞ্জ
    প্রকাশিত গ্রন্থ
    পাবলো পিকাসোর কবিতা (ভাষান্তর কবিতা) ২০১৯
    রৈখিক রক্তে হিজলফুল (কবিতা) ২০২০
    চার্লস বুকোস্কির অপ্রকাশিত কবিতা:
    সোজা তোমার কবরে যাও (ভাষান্তর কবিতা) ২০২১
    জঁ ককতোর বাছাই কবিতা:
    যুদ্ধ বিদ্যালয় (ভাষান্তর কবিতা) ২০২১

    ৳ 170৳ 200
  • আমাদের সঙ্গীত

     

    এম এন মুস্তাফা ১৯৩৬ সালে নোয়াখালীতে জন্মগ্রহণ করেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগ থেকে মাস্টার্স সম্পন্ন করার পর পাঞ্জাব বিশ্ববিদ্যালয়ে সাংবাদিকতা ও লন্ডনে ফিল্ম স্ক্রিপ্ট রাইটিং নিয়ে পড়াশোনা করেন৷ দৈনিক পাকিস্তান অবজারভার ও মর্নিং নিউজের সম্পাদকীয়তে কাজ করতেন। সেই সময়ে Speaking Casually ও Life & Leisure নামে দুটি রম্যসিরিজের জন্য জনপ্রিয় ছিলেন। ১৯৭০ সালে তিনি রেডিও পাকিস্তানে রিজিওনাল ডিরেক্টর হিসেবে কাজ শুরু করেন৷ স্বাধীনতার পরে সত্তরের শেষের দিকে রেডিও বাংলাদেশ চট্টগ্রামে রিজিওনাল ডিরেক্টর হিসেবে কর্মরত ছিলেন। এ ছাড়া তিনি বাংলাদেশ রাষ্ট্রপতির পাবলিক রিলেশন্স অফিসার ও জেনেভার বাংলাদেশ মিশনে প্রেস মুখপাত্র হিসেবে কাজ করেছেন৷ জাতিসংঘসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক কনফারেন্সে অংশগ্রহণের পাশাপাশি মধ্যপ্রাচ্য, উত্তর আফ্রিকা, আমেরিকা ও ইউরোপ ভ্রমণ করেছেন।

    ৳ 390৳ 460
  • আমার ভাবনায় সেলসম্যানশিপ

    এম আতাউর রহমান রোজেল। বেড়ে ওঠা কুমিল্লায়, ভগবান সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক ও কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজ থেকে উচ্চমাধ্যমিক শেষে উচ্চশিক্ষার উদ্দেশ্যে ঢাকায় আগমন। বুয়েট থেকে তড়িৎ প্রকৌশল বিষয়ে বিএসসি করেছেন। বলা হয়, বয়স বাড়ার সাথে সাথে প্রত্যেকেই নিজের থেকে বিচ্ছিন্ন হতে শুরু করে। নিজের অন্তর্নিহিত স্পেশালিটি কোন ক্ষেত্রে জীবনকে কীভাবে এগিয়ে নিয়ে যেতে চায়— এসব কেবল নির্লিপ্ত ফ্যান্টাসিতেই পরিণত হয় এক সময়ে। এই কনভেনশনাল চিন্তাকে রীতিমতো চ্যালেঞ্জ জানিয়ে তিনি এগিয়েছেন পাথুরে পথে, সেলসম্যানশিপ তথা নিজের প্রকৃতিপ্রদত্ত গিফটকে ক্যারিয়ারে সফলভাবে প্রতিষ্ঠিত করার লক্ষ্যে ঢাকা ইউনিভার্সিটি থেকে মার্কেটিং বিষয়ে এমবিএ করেছেন পরবর্তী সময়ে। ইঞ্জিনিয়ারিং পেশা থেকে সেলস ও মার্কেটিং ক্যারিয়ার, সাফল্যের সাথে পনের বছরের অভিজ্ঞতা শেষে বর্তমানে ফিলামেন্ট ইঞ্জিনিয়ারিং লিমিটেড-এ চেয়ারম্যান পদে অধিষ্ঠিত রয়েছেন। পনের বছরের বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারে তিনি যুক্ত ছিলেন সিঙ্গাপুর বাংলাদেশ লিমিটেড, টেকনো ওয়ার্থ এ্যাসোসিয়েটস লিমিটেড ও অলিম্পাস সিঙ্গাপুর প্রাইভেট লিমিটেড কোম্পানিতে। শৈশব থেকেই সবচাইতে কাছের মানুষ ছিলেন মা ও বাবা। সংগ্রামের সময়গুলোতে আস্থা-ভরসা-স্নেহের উষ্ণতায় জড়িয়েছেন একে অপরকে। জীবন যাত্রার প্রতিটি বাঁকেই তাঁদের দ্বারা প্রভাবিত হয়েছেন বারে বারে। পারিবারিক বন্ধনের ছায়ার আস্তরণে ছোট ভাই সোহেলের প্রতি সন্তানসম স্নেহ ধারণ করেছেন সবসময়েই। নিজের শিশুপুত্রের সাথে সম্পর্কের রসায়নেও তাদেরই খুঁজে বেড়ান অবচেতনে, এখনও! সহধর্মিণীর অসীম অনুপ্রেরণা ক্যারিয়ার ও ব্যক্তি জীবনের উত্থান-পতনকে করেছে স্বস্তির।

    ৳ 305৳ 360
  • আমারে দেব না ভুলিতে

    আশীফ এন্তাজ রবি

    আমার জীবনের লক্ষ্য বারবার বদলে গেছে।
    ছোটবেলায় আমি আইসক্রিমওয়ালা হতে চেয়েছিলাম। স্কুলে পড়ার সময় হতে চেয়েছিলাম ডাক্তার। যৌবনে আমার জীবনের লক্ষ্য আমূল বদলে যায়। তখন আমি লেডিস হোস্টেলের দারোয়ান হওয়ার বাসনা পোষণ করতাম।
    আমি শেষমেশ কিছুই হতে পারিনি। যেটা হয়েছি, তার নাম ফেরিওয়ালা, আমি গল্প ফেরি করে বেড়াই।
    আড্ডায় আমি ঘণ্টার পর ঘণ্টা গল্প বলে যাই। সেই গল্প শোনার জন্য অনেকেই আড্ডায় আসেন। একসময় আড্ডার পরিসর বেড়ে যায়। আমি রেডিওতে রাত জেগে গল্প বলা শুরু করি। কয়েক বছর ধরে গল্পগুলো লিখে ফেলার চেষ্টা করছি। আমার মতো অলস মানুষের জন্য এটি অনেক কঠিন কাজ।
    আমার জন্ম ঢাকায়, ১৯৭৭ সালে। আমার জন্ম নিয়েও তিনটি গল্প আছে। যে ডাক্তারের হাতে আমি জন্মেছিলাম, ওই ডাক্তারনি ছিলেন দেশের শ্রেষ্ঠ চিকিৎসক। পরবর্তী সময়ে অন্য কারণে তিনি বিখ্যাত হন। পরকীয়া প্রেমে জড়িয়ে তার ছেলে একটি খুন করেছিল। নব্বইয়ের দশকে সেই ছেলেটির ফাঁসি হয়। সে সময় এ ঘটনাটি বেশ সাড়া ফেলেছিল।
    জন্ম নিয়ে দ্বিতীয় গল্পটি হলো, আমি জন্মেছিলাম রবিবারে। কাজেই আমার বাবা আমার নাম রাখেন রবি। যদিও এ নামটি নিয়ে সেই সময়ে ব্যাপক বিতর্ক হয়। মুসলমান ছেলের নাম কেন রবি হবে, এ নিয়ে আমার আত্মীয়রা আপত্তি তোলেন। আমার পিতা দ্বিধায় পড়ে যান।
    আমার জন্মসংক্রান্ত তৃতীয় গল্পটি বলতে ইচ্ছে করছে, কিন্তু ফ্ল্যাপে জায়গা কম থাকার কারণে সেই গল্পটি আপাতত মুলতবি থাকুক।
    লেখক পরিচিতিতে শুধু এ বাক্যটিই থাকুক, আমি আশীফ এন্তাজ রবি, গল্পের ফেরিওয়ালা।
    প্রকাশিত গ্রন্থ
    পূর্বপূরুষ
    চন্দ্রমুখী
    কাগজের নৌকা
    পালিয়ে যাবার পরে
    আমার আছে ফেসবুক
    গল্পতুচ্ছ

    ৳ 510৳ 600
  • আমি একজন সেলসম্যান!

    তানভীর শাহরিয়ার রিমন, একজন সৃষ্টিশীল মানুষ হিসেবে তার পরিচিতি। স্বপ্ন দেখেন এমন এক নান্দনিক সময়ের, যে সময় হবে কবিতা আর কলমের। জন্ম আর বেড়ে ওঠা তার শ্যামল শহর সিলেটে।
    লেখালেখিতে হাতেখড়ি স্কুলজীবনে। তবে কলেজের গণ্ডি পেরিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে যখন সমুদ্র শহর চট্টগ্রামে আসেন তিনি, তখন তার লেখালেখির ব্যাপ্তি এবং গণ্ডি সীমানা ছাড়ায়। দুহাতে লিখতে শুরু করেন তিনি। প্রথম আলোর বিভিন্ন ফিচার পাতা, দৈনিক
    আজাদীর সাহিত্য পাতা, চট্টগ্রাম মঞ্চ, সিলেটের ডাকসহ বিভিন্ন পত্রিকায় তখন তার সরব বিচরণ। চট্টগ্রামের সাহিত্য-ঙ্গনে তিনি তখন অতি পরিচিত মুখ। জনপ্রিয় ছোট কাগজ সাম্পানের সম্পাদক হিসেবেও তিনি খ্যাতি কুড়ান তখন। তার প্রকাশিত গ্রন্থের মাঝে পাগলা ঘণ্টি এবং ক্ষ্যাপা বাউল উল্লেখযোগ্য।
    প্রেম, ভালোবাসা, বন্ধুতা, অন্তর্গত সম্পর্ক, সময়ের ক্ষয়ে যাওয়া রূপ বেশ সাবলীলভাবে উঠে আসে তার লেখনীতে। শব্দচয়নে তার নিজস্বতা, বৈচিত্র্য তৈরি করেছে তার একটা নিজস্ব পাঠক শ্রেণি।
    কম্পিউটারবিজ্ঞান ও প্রকৌশলে স্নাতক করে ব্যবসায় প্রশাসনে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন তিনি। বর্তমানে তিনি দেশের একজন শীর্ষস্থানীয় করপোরেট ব্যক্তিত্ব। একটি শীর্ষ রিয়েল এস্টেট প্রতিষ্ঠানের সিইও। এ ছাড়া তিনি একজন পাবলিক স্পিকার। দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে নলেজ ইনিশিয়েটিভগুলোতে কি-নোট স্পিকার হিসেবে নিয়মিত কথা বলছেন।
    ব্যক্তি জীবনে তিনি বিবাহিত। এক পুত্র ও এক কন্যাসন্তানের জনক।

    ৳ 170৳ 200
  • আমি কি নারীবাদী

    ফাতেমা সুলতানা শুভ্রা প্রাতিষ্ঠানিক পড়াশোনা করেছেন নৃবিজ্ঞান, নারীবাদ, দক্ষিণ এশীয় অধ্যয়ন ও সাংস্কৃতিক অধ্যয়নে। তাঁর স্নাতকোত্তর পড়াশোনা জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃবিজ্ঞান বিভাগে ২০১১ সাল থেকে শিক্ষকতা করছেন। জন্ম ২৪ জানুয়ারি ১৯৮৪, চট্টগ্রামে। বিশ্লেষণাত্মক, ব্যক্তিগত বয়ানভঙ্গি ও কথ্য ইতিহাসের মধ্য দিয়ে তিনি তাঁর গবেষণাকাজ সম্পন্ন করেন। একাডেমিক লেখালেখি ছাড়াও ছাপা-মাধ্যমে এবং অনলাইনে তিনি লিখে থাকেন। শিক্ষকতার পাশাপাশি যৌনতা, নারীর প্রতি সহিংসতা, শরীরী রাজনীতি, কথ্য ইতিহাস, আইন, রাষ্ট্র ও ক্ষমতা প্রসঙ্গে গবেষণায় আগ্রহ রয়েছে।

    ৳ 390৳ 460
  • আমেরিকায় উচ্চশিক্ষা

    ড. রাগিব হাসান একজন কম্পিউটারবিজ্ঞানী। বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অব অ্যালাবামা অ্যাট বার্মিংহামের কম্পিউটারবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক। সরকারি চাকুরে মো. শামসুল হুদা ও শিক্ষিকা রেবেকা সুলতানার সন্তান রাগিবের জন্ম চট্টগ্রামে। পড়াশোনা করেছেন চট্টগ্রাম কলেজিয়েট স্কুল ও চট্টগ্রাম কলেজে।
    বিজ্ঞান বিভাগে এসএসসিতে ৪র্থ এবং এইচএসসিতে ১ম মেধাস্থান অধিকার করেন। বুয়েট-এর কম্পিউটার কৌশল বিভাগ থেকে সর্বোচ্চ জিপিএ নিয়ে স্নাতক ডিগ্রি লাভ করেন। সব বিভাগে সেরা ফলাফলের জন্য পান চ্যান্সেলর গোল্ড মেডেল।
    বুয়েটে কিছুদিন শিক্ষকতার পরে উচ্চশিক্ষার্থে যুক্তরাষ্ট্রে যান। কম্পিউটার নিরাপত্তার ওপরে মাস্টার্স শেষে পিএইচডি করেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম সেরা বিশ্ববিদ্যালয় ইউনিভার্সিটি অব ইলিনয় অ্যাট আরবানা শ্যাম্পেইন থেকে। এরপর যোগ দেন অধ্যাপনা পেশায়।
    সিক্রেটল্যাব নামের গবেষণাগারের প্রতিষ্ঠাতা তিনি। গবেষণা করছেন কম্পিউটার নিরাপত্তা ও ক্লাউড কম্পিউটিং নিয়ে। গবেষণার উৎকর্ষের জন্য মার্কিন জাতীয় বিজ্ঞান ফাউন্ডেশন থেকে ২০১৪ সালে পেয়েছেন ক্যারিয়ার পুরস্কার।
    রাগিবের মন পড়ে থাকে বাংলাদেশে; বাংলা ভাষা ও সংস্কৃতির দিকে। বাংলা উইকিপিডিয়ার শুরু থেকেই নেতৃত্ব দিয়েছেন, বাংলা ব্লগিংয়ের সাথে জড়িত থেকেছেন ২০০৫ থেকে। ২০১৫ সালে প্রকাশিত রাগিব হাসানের প্রথম দুটি বই গবেষণায় হাতেখড়ি ও মনপ্রকৌশল একুশে বইমেলার বেস্ট সেলার।
    বাংলায় মুক্তজ্ঞানের সাইট www.shikkhok.com এবং দৃষ্টিপ্রতিবন্ধীদের ব্রেইল ও অডিও বই বানানোর ক্রাউডসোর্সড প্রজেক্ট বাংলা ব্রেইল প্রতিষ্ঠাতা তিনি। এ সব কাজের স্বীকৃতি হিসাবে পেয়েছেন Google RISE Award, Information Society Innovation Fund Award, Internet Society Grant এবং ডয়চে ভেলের The BoBs অ্যাওয়ার্ড।
    স্ত্রী ডা. জারিয়া আফরিন চৌধুরী একজন সাইকিয়াট্রিস্ট। ছেলে যায়ান আর মেয়ে রিনীতা যোয়ীকে নিয়ে তারা থাকেন যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণের শহর বার্মিংহামে।
    যোগাযোগ—
    ইমেইল: [email protected]
    ফেসবুক: fb.com/ragibhasan, ওয়েবসাইট: www.ragibhasan.com

    ৳ 255৳ 300
  • আম্মার বাগান

    ফেরদৌস আরা রুমীর জন্ম ঢাকায়। পড়াশোনা করেছেন অর্থনীতিতে। কাজ করছেন একটি উন্নয়ন সংস্থায়।
    প্রকাশিত গ্রন্থ
    ১. বড় মানুষের ছোট ছোট কথা, সাক্ষাৎকারভিত্তিক গ্রন্থ, ২০১৮
    ২. আমি কারো সঙ্গে কথা বলছিলাম, কাব্যগ্রন্থ, ২০১৯

    ৳ 136৳ 160
  • আরডুইনোতে হাতেখড়ি

    মুনেম শাহরিয়ার
    রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগ থেকে স্নাতক সম্পন্ন করেছেন। স্কুল ও কলেজ-জীবন থেকেই লেখালিখি, চিত্রাঙ্কন, বিতর্ক, গান, গিটার, আবৃত্তি, উপস্থাপনা নিয়ে থেকেছেন, কাজ করেছেন সাহিত্য-পত্রিকা এবং বিভিন্ন সেবা সংগঠনের সঙ্গে।
    তরুণ শিক্ষার্থীদের মাঝে প্রযুক্তি-শিক্ষার প্রসারের স্বপ্নে সহ-প্রতিষ্ঠা করেছেন Arduino Community Bangladesh (ACB)। বর্তমানে সহ-প্রতিষ্ঠাতা এবং চিফ স্ট্র্যাটেজি অফিসার হিসেবে Tinkers Technologies Ltd-এ কাজ করছেন।
    facebook.com/munem.shahriar


    রুহুল আমীন
    পড়েছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে। ছোটবেলা থেকেই ইলেক্ট্রনিক্স ও কম্পিউটার-ভক্ত।
    বাংলাদেশে আরডুইনো চর্চা নিয়ে অনেক স্বপ্ন থেকে সহ-প্রতিষ্ঠা করেছেন আরডুইনো কমিউনিটি বাংলাদেশ (এসিবি)। তারা দেশের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে প্রযুক্তি-শিক্ষা ছড়িয়ে দিতে সাহায্য করে যাচ্ছেন। কর্মজীবনে তিনি ‘টিংকার্স টেকনোলজিস লিমিটেড’-এর সহ-প্রতিষ্ঠাতা এবং চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসার হিসেবে কাজ করছেন।
    [email protected]


    সাদিয়া কবির দিনা
    জন্ম ও বেড়ে ওঠা ঢাকার শহুরে ব্যস্ততা আর দালানের মিছিলে। মলাটবন্দি কালো হরফ আর আকাশভরা নক্ষত্ররা তাকে বাঁচিয়ে রাখে নতুন একটা দিনের রসদ যোগান দিয়ে। স্বপ্ন দেখেন ঘুরে বেড়াবেন বিশ্বের কোনায় কোনায় আর যে দেশ আজন্ম তাকে লালন করছে তার জন্য যথাসম্ভব কিছু করে যাবেন।
    নিজেকে একজন শৌখিন লেখক এবং প্রভাবশালী উদ্যোক্তা হিসেবে কল্পনা করতে ভালোবাসেন। বর্তমানে হাংগেরির ইউনিভার্সিটি অফ ডেব্রেসেনে মেকাট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং নিয়ে পড়াশোনা করছেন।
    [email protected]

    ৳ 272৳ 320
  • আলাদিনের গ্রামে

    আলতাফ শাহনেওয়াজ জন্ম ২৫ জুন ১৯৮১, ঝিনাইদহ শহরে। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগ থেকে স্নাতক (সম্মান) ও স্নাতকোত্তর। লেখালেখির শুরু নির্লিপ্ত নয়ন নামে, ছোটকাগজে। কাব্যগ্রন্থ রাত্রির অদ্ভুত নিমগাছ (২০১১), আলাদিনের গ্রামে (২০১৬), কলহবিদ্যুৎ (২০১৯), সামান্য দেখার অন্ধকারে (২০২০), সহসা দুয়ারে (২০২১); নাট্যগ্রন্থ নৃত্যকী (২০১৬)। সম্পাদনা করেছেন ছোটকাগজ ঢোল সমুদ্দুর (২০০১), শাখাভরা ফুল (২০০৯)। আলাদিনের গ্রামের জন্য ‘আদম সম্মাননা ২০১৬’ (ভারত) এবং নৃত্যকীর জন্য ‘কালি ও কলম তরুণ কবি ও লেখক পুরস্কার ২০১৭’ পেয়েছেন। কাজ করছেন একটি জাতীয় দৈনিকে। [email protected]

    ৳ 204৳ 240
  • আলো ও তড়িৎ চুম্বক

    ড. মাহ্‌দী রহমান চৌধুরী বর্তমানে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ইলেকট্রিক্যাল ও কম্পিউটার প্রকৌশল বিভাগে অ্যাসোসিয়েট প্রফেসর হিসেবে কর্মরত আছেন। তিনি ১৯৮৭ সালের ১২ অক্টোবর দিনাজপুরে জন্মগ্রহণ করেন। পাবনা ক্যাডেট কলেজের গণ্ডি পেরিয়ে পড়েছেন বুয়েটের ইলেক্ট্রিক্যাল এন্ড ইলেক্ট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্টে। ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব সিঙ্গাপুরে তার পিএইচডি থিসিস জমা দেওয়ার পরপরই তিনি ২০১৭ সালে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে অ্যাসিসট্যান্ট প্রফেসর হিসেবে যোগ দেন। এখন পর্যন্ত তিনি ৩১টি আন্তর্জাতিক জার্নাল আর্টিকেল প্রকাশ করেছেন, যার মধ্যে পাঁচটি নেচার পাবলিশিং গ্রুপে প্রকাশিত। ২০১৮-২০ সালে গবেষণায় অবদানের কারণে তাকে ২০২১ সালের অন্যতম সেরা গবেষক পুরস্কার দেয় নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়। এছাড়াও ২০১৮ সালে তিনি World Academy of Science (TWAS) থেকে একটি আন্তর্জাতিক গবেষণা অনুদান পেয়েছেন।

    পেশায় প্রকৌশলী, কিন্তু মনে প্রাণে তিনি একজন শিক্ষক। জনপ্রিয় অনলাইন প্ল্যাটফর্ম অন্যরকম পাঠশালা ও টেন মিনিট স্কুলে পদার্থবিজ্ঞানের ক্লাস নেওয়ার পাশাপাশি বাংলাদেশে বিজ্ঞানচর্চা জনপ্রিয়করণের জন্য তার চেষ্টার অন্ত নেই। ছোটদের সায়েন্স কিট, বিজ্ঞানভিত্তিক বই রচনা এবং বিজ্ঞানবিষয়ক ওয়েব কনটেন্ট ও টিভি অনুষ্ঠান নিয়ে কাজ করছেন তিনি। আইডিয়াল স্কুল, নটরডেম কলেজ ও বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বুয়েট) কাটে তার শিক্ষাজীবন। যেখানেই গেছেন, সেখানেই শেখা এবং শেখানোর জন্য কাজ করেছেন, ভবিষ্যতেও তা-ই করতে চান। রাতুল খান বর্তমানে কর্মরত আছেন অন্যরকম বিজ্ঞানবাক্সের রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট বিভাগে।

    ৳ 510৳ 599