Showing all 2 results

  • অকাল বার্ধক্য ও রোগ প্রতিরোধ

    দীপায়ন তূর্য পদার্থবিজ্ঞান, নিউট্রিশন ও নিউরোসায়েন্স নিয়ে জানতে ও আলোচনা করতে ভালোবাসেন। উনি এমন একজন মানুষ যিনি বোঝেন যে জীবনের সত্যিকারের কোনো উদ্দেশ্য নেই, তা সত্ত্বেও সামনে থাকা মানুষকে বলেন ‘জীবনের নিগূঢ় রহস্য খোঁজা হলো বোকামি, এগুলো সময়ের অপচয়; তার চেয়ে যা করলে মনে শান্তি আসে সেটাই করা উচিত।’ কখনোই কাউকে অন্যের ফিলোসফিতে চলতে উদ্বুদ্ধ করেন না। জন্ম চট্টগ্রাম শহরে। মা স্বাতী পাল, বাবা সুভাষ চন্দ্র সূত্রধর। বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) থেকে মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং নিয়ে পড়াশোনা শেষে বর্তমানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে তাত্ত্বিক পদার্থবিজ্ঞানে মাস্টার্স সম্পন্ন করছেন।
    ওনার সবচেয়ে প্রিয় কাজ মানুষকে নিজের মতো করে ভাবতে অনুপ্রাণিত করা।

    গান গাইতে ভালোবাসেন; সাউন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং শিখছেন সেই ভালোবাসা থেকে।
    প্রিয় বাক্য ‘There is no undignified way of learning till you enjoy it.’
    ই-মেইল: [email protected]
    ওয়েবসাইট: deepayanturja.wordpress.com
    ফেসবুক পেজ: fb.com/deepayanturja.educational

    মিশু দাসের জন্ম রাজবাড়ী জেলায়। মা কনিকা রানী নাগ, বাবা রতন কুমার দাস। এইচএসসি পর্যন্ত পড়াশোনা করেছেন রাজবাড়ীতে। পরবর্তী সময়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজ থেকে খাদ্য ও পুষ্টিবিজ্ঞানে অনার্স ও মাস্টার্স করেন। বর্তমানে তিনি সাওল হার্ট সেন্টারে পুষ্টিবিদ হিসেবে কর্মরত আছেন।
    তার প্রিয় কাজগুলোর মাঝে প্রথমেই আছে বই পড়া। সময় পেলেই বইয়ের রাজ্যে নিজেকে আবিষ্কার করতে ভালোবাসেন তিনি। অবসরে জার্নালিং করা, বাগান করা, ঘুরতে যাওয়া, ছবি আঁকা, গান করা, পরিবারের সঙ্গে সময় কাটানো এসব তার প্রিয়। কীভাবে শারীরিক ও মানসিকভাবে সুস্থ থাকা যায় এবং সুস্থ থাকার জন্য কেমন জীবন যাপন করা দরকার, কোন খাবারগুলো সুস্থ থাকতে সাহায্য করতে পারে, এসব বিষয় নিয়ে তিনি ভাবতে ভালোবাসেন। সেসব ভাবনা থেকেই তার এ বইটি লেখার অনুপ্রেরণা পাওয়া।

    এটি তার প্রথম বই। বইটি পড়ে পাঠকের কেমন লাগল তা জানাতে পারেন লেখকের ই-মেইল অথবা ফেসবুক অফিশিয়াল পেজে।
    ই-মেইল: [email protected]
    ফেসবুক পেজ: fb.com/nutritionistmishudas

    ৳ 204৳ 240
  • সুস্থতায় ব্যায়াম

    পিতা: মো. সালেক আহমেদ
    মাতা: জাহানারা বেগম
    জন্ম: রাঙ্গামাটির মাইনীমুখ। বাবার সরকারি কর্মসূত্রে শৈশবের কিছু সময় কেটেছে পিরোজপুরের ভান্ডারিয়ায় এবং বেশির ভাগ সময় চট্টগ্রাম শহরে। চট্টগ্রাম সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয় থেকে এসএসসি ও চট্টগ্রাম সরকারি কলেজ থেকে এইচএসসি প্রথম বিভাগে পাস করেন।
    ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিসিন অনুষদ থেকে ফিজিওথেরাপি বিষয়ে গ্রাজুয়েশন ও ব্রাক বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আরলি চাইল্ডহুড ডেভেলপমেন্ট (ইসিডি) মাস্টার্স করে ২০১৩ সালে গড়ে তুলেছেন ফিজিক্যাল থেরাপি অ্যান্ড রিহ্যাবিলিটেশন সেন্টার (পিটিআরসি) নামে একটি অত্যাধুনিক ফিজিওথেরাপি সেন্টার। এই প্রতিষ্ঠান প্রতিবন্ধী শিশুদের জন্য ফিজিওথেরাপি, স্পিচ থেরাপি, চাইল্ড ডেভেলপমেন্টাল থেরাপিসহ জনগণকে সচেতন করতে নানা সচেতনতামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করে থাকে। উদ্যোক্তা হিসেবে বেশ কিছু জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পুরস্কার পেয়েছেন। ২০১৮ সালে ইন্টারন্যাশনাল ভিজিটর লিডারশিপ প্রোগ্রামে আমেরিকান ফেলোশিপ পান।
    বর্তমানে লেখালেখির মধ্য দিয়ে সাধারণ মানুষের মাঝে ফিজিওথেরাপি, প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের নানাবিধ সমস্যার সমাধান ও সচেতনতা সৃষ্টি করে চলছেন। দেশের শীর্ষস্থানীয় বিভিন্ন জাতীয় দৈনিক ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় নিয়মিত সচেতনতামূলক কাজ করে চলছেন।
    https://www.facebook.com/umma.rumki
    [email protected]
    PTRC Rehab and Physiotherapy Center
    website: www.ptrcbd.com

    ৳ 170৳ 200