Showing all 2 results

  • গণিতের মঞ্চে

    আহমেদ জাওয়াদ চৌধুরী আন্তর্জাতিক কোনো অলিম্পিয়াডে প্রথম স্বর্ণপদকজয়ী বাংলাদেশি। জন্ম ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০০০ সাল, চট্টগ্রামে। মা সৈয়দা ফারজানা খানম, বাবা আহমাদ আবু জায়েদ চৌধুরী। ছোটবেলায় সব ধরনের বই পড়তেন, সব বিষয়ে জানতে আগ্রহী ছিলেন। কিন্তু গণিত অলিম্পিয়াডে ২০১১ সালে প্রাইমারি ক্যাটাগরিতে চ্যাম্পিয়ন অব দ্য চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর তার আগ্রহ বেড়ে যায় গণিতের প্রতি। দীর্ঘদিন ধরে চট্টগ্রাম ম্যাথ সার্কেল এবং অন্যান্য ক্যাম্পের মাধ্যমে তার গণিতের প্রতি ভালোবাসা অন্যদের মাঝে ছড়িয়ে দিচ্ছেন। তিনি বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজিতে (এমআইটি) দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী।

    এম আহসান আল মাহীর ছোটবেলা থেকেই আঁকতে ভালোবাসেন। ২০১৩ সালে প্রথম গণিত অলিম্পিয়াডে অংশগ্রহণের পর তার আঁকার বিষয় প্রাকৃতিক দৃশ্য থেকে পরিণত হয় জ্যামিতির রেখা-বিন্দুতে। ২০১৬ সালে প্রথম জাতীয় গণিত ক্যাম্প থেকে তার আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বিচরণ। তখন থেকে মোট ৬টি পদক অর্জন করেন বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গণিত অলিম্পিয়াডে। গণিতের ভালোবাসা ছড়িয়ে দিতে তিনি নিজ স্কুল এস ও এস হারম্যান মেইনার কলেজের গণিত ক্লাবসহ আরও অনেক গণিত ক্লাবের সাথে জড়িত। জন্ম ২০০৩ সালের ২৬ জুন, বরিশালে। মা মোসাঃ মাহফুজা আখতার, বাবা এস এ মালেক। শিক্ষার গণ্ডি পার করে আহসান হতে চান একজন গণিতবিদ।

    সাইফুর রহমান তাশকি ছোটবেলা থেকেই ফুটবল, টেনিস, ক্রিকেটের বড় ভক্ত। প্রথমবারের মতো গণিত অলিম্পিয়াড ২০১৬ সালে অংশগ্রহণের পর থেকে তার পছন্দের তালিকায় যুক্ত হয় গণিত। গণিত ক্যাম্প থেকে গণিতের প্রতি যে ভালোবাসা তিনি আবিষ্কার করেছেন তা এখন ছোটদের মধ্যে ছড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছেন চট্টগ্রাম ম্যাথ সার্কেল এবং আরও বিভিন্ন মাধ্যমে। তার জন্ম ২০০১ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর,

    ৳ 510৳ 600
  • চমক হাসানের নয়টি বই

    চমক হাসানের জন্ম ২৮ জুলাই, ১৯৮৬, কুষ্টিয়ায়। বাবা আহসানুল হক, মা নওরাজিস আরা জাহান। এইচএসসি পর্যন্ত লেখাপড়া কুষ্টিয়াতেই। বুয়েট থেকে তড়িৎকৌশলে স্নাতক এবং যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অব সাউথ ক্যারোলাইনা থেকে পিএইচডি সম্পন্ন করেন। বর্তমানে গবেষণা ও উন্নয়ন প্রকৌশলী হিসেবে কর্মরত আছেন ‘বোস্টন সায়েন্টিফিক করপোরেশন’-এ। স্ত্রী ফিরোজা বহ্নি এবং কন্যা বিনীতা বর্ণমালার সঙ্গে থাকেন ক্যালিফোর্নিয়ার সান্টা ক্লারিটা শহরে।
    তার ভালো লাগে গাইতে, পড়তে, শিখতে, শেখাতে। চমক হাসান আশাবাদী মানুষ, স্বপ্ন দেখেন আলোকিত ভবিষ্যতের, যখন এ দেশের ছেলেমেয়েরা আনন্দ নিয়ে লেখাপড়া করবে, প্রশ্ন করতে ভয় পাবে না, মুখস্থ করে পাস করবে না। ওরা অনুভব করবে কেন, কীভাবে, কী হচ্ছে! গণিত অলিম্পিয়াড শুরুর সাথে সাথে এই আন্দোলনটাও শুরু হয়ে গেছে। তিনি সেই আন্দোলনের একজন কর্মী। গণিত অলিম্পিয়াডের একাডেমিক দলে প্রশিক্ষক, প্রশ্নপ্রণেতা ও পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক হিসেবে কাজ করেছেন বেশ কিছুদিন। পাঠকের যেকোনো মন্তব্য তার কাছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। মন্তব্য জানাতে পারেন ই-মেইলে কিংবা ফেসবুকে তার অফিশিয়াল পেজে।

    ৳ 2,335