• বিটকয়েন

    মোস্তফা তানিম তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক একটি মার্কিন কোম্পানিতে ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে কর্মরত।
    বুয়েট থেকে লেখাপড়ার পাট চুকিয়ে তিনি যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি জমান। টেক্সাস এ অ্যান্ড এম ইউনিভার্সিটি থেকে তিনি উচ্চতর ডিগ্রি নেন এবং কর্মজীবনে প্রবেশ করেন। এই করতে গিয়ে তিনি আমেরিকায় থিতু হয়েছেন।
    অথচ এমনটা হবার কথা ছিল না। শখের বশে অনেকে লেখক হন— মোস্তফা তানিমের জন্য বিষয়টা ছিল অন্যরকম। কৈশোর থেকেই তিনি সিরিয়াসলি লেখালেখি শুরু করেছিলেন।
    লেখালেখিটা তার দ্বিতীয় পেশা। ইদানিং তিনি আবার জোরেশোরে লিখা শুরু করেছেন। এই মেলাতেই তার দুটি বই প্রকাশিত হয়। উত্তর আমেরিকার প্রথম আলোতেও নিয়মিত লিখছেন।
    বিজ্ঞান তার একটা প্রিয় বিষয়, তার লেখায় সেটার স্পষ্ট ছাপ পড়েছে। বিজ্ঞানের সাথে কলার বিরোধ— মোস্তফা তানিম অসামান্য দক্ষতায় সেই বিরোধ সামলান তো বটেই, মাঝে মাঝে দুটোকে বেশ দারুণভাবে সমন্বয় করেন। ফলে তিনি এ পর্যন্ত দারুণ চারটি সায়েন্স ফিকশান সহ নটি গ্রন্থ লিখে ফেলেছেন, যা পাঠক সমাদৃত।
    https://www.facebook.com/mostafa.tanim

    ৳ 170৳ 200
  • মানুষ ও ভাইরাসের যুদ্বের ইতিহাস: করোনার শুরু থেকে শেষ

    মোস্তফা তানিম লেখালেখি করছেন তিন দশক ধরে। তিনি মূলত: একজন সায়েন্স ফিকশান এবং বিজ্ঞান বিষয়ক লেখক। বাংলাদেশের যে স্বল্প সংখ্যক লেখক সায়েন্স ফিকশান লিখে পাঠকের মনোযোগ কেড়েছেন, মোস্তফা তানিম তাদেরই একজন।
    লেখক তীর্থভূমি হিসেবে খ্যাত ‘কচি কাঁচার আসর’ দিয়ে তার লেখক জীবনের সূচনা। নব্বই দশকে পত্রিকার জন্য দুই হাতে লিখেছেন। এখন নিয়মিত লিখছেন প্রথম আলোতে।
    লেখালেখির মতো তার পেশাও ভীষণভাবে বিজ্ঞানকেন্দ্রিক। বুয়েটে লেখাপড়ার পাট চুকিয়ে তিনি পাড়ি জমান যুক্তরাষ্ট্রে। এরপর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাস এ এন্ড এম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে উচ্চতর ডিগ্রি অর্জন করেন। বর্তমানে তিনি একটি মার্কিন আই,টি, কোম্পানির ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে কর্মরত আছেন।
    জগতের রহস্যময়তা এবং যুক্তি – এই দু’টি বিপরীতমুখী জিনিস তাকে সমানভাবে টানে। তার লেখালেখিতে এই দুয়ের সুন্দর সমন্বয় ঘটেছে। যে কারণে তার সায়েন্স ফিকশান অথবা বিজ্ঞানের তথ্যমূলক গ্রন্থগুলো কেবল বিজ্ঞানের নীরস কচকচানি নয়, একই সাথে রহস্যময় জগতের সরস বর্ণনামুখর।

    এটি নিয়ে তার তেরটি গ্রন্থ প্রকাশিত হলো।

    ৳ 204৳ 240